নিজস্ব প্রতিবেদন: হাতির হামলায় মারা গেলে চাকরি দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার দেড় মাসের মধ্যেই শুরু হয়ে গেল নিয়োগ। হাতির হামলায় মৃতদের পরিবারের ৪৩৪ জনকে প্রথম দফায় দেওয়া হচ্ছে হোমগার্ডের চাকরি।
গত ৬ অক্টোবর ঝাড়গ্রামে প্রশাসনিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন,”হাতির আক্রমণ বেশিরভাগটাই হয় ঝাড়গ্রামে।মেদিনীপুর,পুরুলিয়া, বাঁকুড়াতেও হামলা করে হাতি।

উত্তরবঙ্গেও তেমন ঘটনা ঘটে। আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, হাতির আক্রমণে কেউ মারা গেলে পরিবারের এক সদস্যকে স্পেশাল হোমগার্ডে চাকরি দেওয়া হবে। অনেকে এভাবে মারা যায়, তার পরিবারের দিকে ফিরেও তাকায় না। তাঁরা আড়াই লক্ষ টাকা পায়, এবার চাকরিও দেওয়া হবে।” ওই ঘোষণার দেড় মাস কেটেছে।
২০ নভেম্বর বিবৃতি জারি করে জানানো হল, বন দফতরের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে প্রথম দফায় ৪৩৪ জনের নাম মিলেছে। ৪৩৪জনকে হোমগার্ডের চাকরি দেওয়া হচ্ছে।
উত্তরবঙ্গ থেকে দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় হাতির হামলায় হতদের পরিবারের সদস্যদের নিয়োগ করা হচ্ছে।
সবচেয়ে বেশি নিয়োগ হচ্ছে জলপাইগুড়ি জেলায়। ওই জেলার ৯৬ জন চাকরি পাচ্ছেন।

By Subrata

সুব্রত .

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected By Kolkatavision !!